Comilla TV - The First online TV of Comilla

বুড়িচংয়ে পিতা ও ছোট ভাইয়ের হাতে আবু হাসান হত্যা

আক্কাস আল মাহমুদ হৃদয়,বুড়িচং(কুমিল্লা) প্রতিনিধি।

কুমিল্লা.টিভি

প্রকাশিত : ০৫:০৪ পিএম, ২৭ আগস্ট ২০২০ বৃহস্পতিবার

কুমিল্লা টিভি

কুমিল্লা টিভি

কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলা বুড়িচং গ্রামের পশ্চিমপাড়ায় বাবা ও ছেলের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পিতা আনোয়ার হোসেন (অবসর প্রাপ্ত পুলিশ) ও তার ছেলে ছোট ছেলে জাহিদুল হাসান সবুজের হাতে বড় ছেলে আবুল হাসান কে মেরে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) সকাল ১০ ঘটিকায়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার বুড়িচং গ্রামের মৃত শামসু মিয়ার ছেলে মোঃ আনোয়ার হোসেন(৫৫)(অবসর প্রাপ্ত পুলিশ) এবং তার ছোট ছেলে জাহিদুল হাসান সবুজের (২৬) সাথে বড় ছেলে বিদেশ ফেরত আবুল হাসানের (৩০) পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রায়ই ঝগড়ার সৃষ্টি হতো। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবা সকাল ১০ টায় আনোয়ার হোসেন ও জাহিদুল হাসান বাড়ির ছাদের উপর গাছ লাগানোকে কেন্দ্র করে তর্ক-বির্তকের এক পর্যায়ে ইট ও কোদাল দিয়ে ঘাড় ও মাথায় আঘাত করলে বড় ছেলে আবু হাসান মারাত্মক ভাবে আহত হয়ে ছাদে লুটে পড়ে। ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে ছাদ থেকে ফেলে দেওয়া হয়। পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বুড়িচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। পরবর্তীতে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

স্থানীয়রা জানান, ছাদের উপর কুমড়া গাছের চারা লাগানো নিয়ে বাবা আনোয়ার হোসেন, ছোট ছেলে জাহিদুল হোসেন সবুজ,সাইফুল ইসলাম ও বিদেশ ফেরত আবু হাসান মধ্যে ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। ঝগড়া ও তর্ক-বির্তকের এক পর্যায়ে আবুল হাসানকে ইট ও কোদাল দিয়ে মাথা ও ঘাড়ে মারাত্মক আঘাত করার ফলে আহত হলে পরে তাকে ছাদ থেকে মাটিতে ফেলে দেওয়া হয়।
নিহতের শ^াশুড়ী রুজি বেগম সাংবাদিককে জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার মেয়ে তানিয়া আক্তার ও জামাই আবু হাসানের উপর বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছে শ^শুড় আনোয়ার হোসেন এবং তার মেয়েকে টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করতেন। আজ সকালে আমার মেয়ে তানিয়া আক্তার ঘটনাটি আমাকে জানালে, আমি ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল থেকে বুড়িচংয়ে চলে আসি। ঘটনাটি তারা ধামাচাপা দিয়ে রাখলেও ইট এবং কোদাল দিয়ে আহত করে আমার মেয়ের জামাইকে মেরে ছাদ থেকে ফেলে দিয়েছে বলে আমি জানতে পাই আমার শিশু নাতিন নাবিহার কাছ থেকে। আমি প্রশাসনের কাছে এ হত্যার বিচার চাই।
নিহতের স্ত্রী তানিয়া আক্তার জানান, টাকা-পয়সা নিয়ে তার স্বামীর সাথে শ^শুড় আনোয়ার হোসেন ও দেবর জাহিদুল হাসান সবুজের ঝগড়া হতো। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সকালে বাড়ির ছাদের উপর গাছের চারা লাগাতে গেলে শ^শুর ও দেবর মিলে ইট ও কোদাল দিয়ে আঘাত করে মেরে ফেলে।
বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাম্মেল হক বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গী ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি এবং লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছি এবং মামলার প্রক্রিয়াধীন অব্যাহত রয়েছে।

 

এই বিভাগের জনপ্রিয়