Comilla TV - The First online TV of Comilla

ত্যাগী নেতাদের অন্তভুক্তি করার দাবীতে দাউদকান্দিতে বিক্ষোভ মিছিল

ওমর ফারুক মিয়াজী

কুমিল্লা.টিভি

প্রকাশিত : ০৬:০৩ পিএম, ৬ ডিসেম্বর ২০২০ রবিবার

সম্মেলনের দীর্ঘ এক বছর অপেক্ষার পর গত বৃহস্পতিবার অনুমোদন হয় ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পূর্ণাঙ্গ কমিটি। এতে বিএনপি ও জাতীয় পাটি থেকে আগতদের স্থান দেওয়া হয়েছে আর ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যন করারয় আন্দোলন মানববন্দন বিতর্কের ঝড় ওঠে। কমিটিতে আবুর হাসেম সরকারসহ ত্যাগীদের নতুন কমিটিরতে অন্তভুক্তি করার দাবীতে আজ রোববার বিকেলে দাউদকান্দি উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে ঢাকা চট্রগ্রাম মহাসড়কে গৌরীপুর বাসস্ট্যান্ডে মানববন্দন ও বিক্ষোভ মিছিলের অনুষ্ঠিত হয়েছে হয়েছে।

 

এতে উপজেলা আওয়ামীলীগ এর অঙ্গ সংগঠনের কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ গ্রহণ করেন। উপজেলা আওয়ামীলীগে সহসভাপতি আবদুল আউয়াল মাস্টারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা নিজাম হোসেন. গৌরীপুর ইউনিয়র আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ওয়াদুদ সরকার, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, জানে আলম রাসেল, উপজেলার্ ৃষতলীগের সভাপতি হজী সাহ আলম, শ্রমিকলীগের সাধারণ সস্পাদক আক্তার হোসেন, জুলহাস, হাসানুজ্জামান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক নাছির উদ্দিন প্রমূখ।


গত জেলা কমিটিতে দপ্তর সম্পাদক আবুল হাসেম সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সালাম, সদস্য মামুন চেয়ারম্যান, মহসিন ভুইয়াসহ , সাংবাদিক হাবিবুর রমান হাবিব, আবদুল আঊয়াল মাস্টার, অমূূল্য চন্দ্র বণিক, অনেক ত্যাগী নেতাদের নতুন কমিটিতে স্থান পায়নি।


গত কমিটির দপ্তর সম্পাদক আবুল হাসেম সরকার বলেন, আমি ১৮ বছর দাউদকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলাম, চার বছর ছিলাম ভারপ্রাপ্ত। অথচ এই পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে আমার ঠাঁই হয়নি। যারা জেলা কমিটির সভাপতি-সম্পাদক হয়েছে তারা থানা কমিটিরও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেননি। পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে টাকার বিনিময়ে অযোগ্য লোকদের রাখা হয়েছে। অনেক ছাত্রলীগ-যুবলীগের ছেলেরা পদ পেলেও বাদ পড়েছেন দলের সিনিয়র ত্যাগী নেতারা।


কুমিল্লা উত্তর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রৌশন আলী মাস্টার আলাপকালে তিনি বলেন, যারা কমিটিতে এসেছে তাদের সকলের বিষয়ে গোয়েন্দা সংস্থা খোঁজখবর নিয়েছে, তদন্ত করেছে। এখানে বিতর্কিত কেউ এসে থাকলে আমাদেও করার কিছু নেই। আমি ও সভাপতি সাহেব উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক সেই এলাকার নেতাদেও নাম দিয়েছেন। কারণ রাজনীতি করতে লোক লাগে। এটা কোন অন্যায় না। আর কমিটি ঘোষণা হয়ে গেছে, এটা নিয়ে এখন কোন বিতর্ক হতে পারে না। আমাদের সিনিয়র নেতারা এসব নিয়ে কথা বলবেন।

 

 

এই বিভাগের জনপ্রিয়