Comilla TV - The First online TV of Comilla

কাল থেকে ৩ ঘণ্টা ডিস-ইন্টারনেট বন্ধ

কুমিল্লা.টিভি

প্রকাশিত : ০৩:১০ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২০ শনিবার

আগামীকাল থেকে প্রতিদিন ৩ ঘন্টা ইন্টারনেট ও কেবল টিভি (ডিশ) সংযোগ বন্ধ রাখার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) ও কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (কোয়াব)।

ঝুলন্ত ক্যাবল (তার) অপসারণের প্রতিবাদে আগামীকাল থেকে প্রতিদিন ৩ ঘণ্টা ইন্টারনেট ও কেব্ল টিভি (ডিশ) সংযোগ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তে অনড় আছে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) ও কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (কোয়াব)। মাটির নিচ দিয়ে তার সম্প্রসারণের সুযোগ না দিয়েই ঝুলন্ত তার কাটায় সংগঠন দুটির এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছে।

 

রাজধানীর বিভিন্ন স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকরা আছেন উৎকণ্ঠায়। ঢাকা আজিমপুর এলাকার একজন শিক্ষিকা বলেন, নীতিনির্ধাকদের মন্বয়হীনতার এই বেড়াজালে বলির পাঠা হচ্ছি আমরা। প্রাইভেট কোম্পানির এক কর্মকর্তা বলেন, আমার সন্তানদের  ক্লাস, পরীক্ষা সব হচ্ছে অনলাইনে। সেক্ষেত্রে ইন্টারনেট ভরসা। ইন্টারনেট কানেকশন এই আছে এই নাই। নেটওয়ার্কের এমন অস্থির গতি শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করে। তারমধ্যে ৩ ঘন্টা বন্ধ থাকবে ইন্টারনেট এবং ডিস লাইন। আমরা গ্রাহকেরা অর্থ খরচ করেও সেবা পাবো না। উল্টো ভোগান্তিতে পড়তে হবে বললেন মো: শামীম।

 

ব্যবসায়িরা আছেন বেশী আতঙ্কে। কারণ তাদের পুঁজি হারানোর ভয় বেশি। ইন্টারনেট বন্ধ থাকলে করোনা মহামারীর এই সময়ে অনেকেই আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। দুঃশ্চিন্তায় পরেছেন ইন্টারনেট ও ক্যাবল সেবা গ্রহীতারা। বাড়িতে থেকে ইন্টারনেটনির্ভর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশংকা করছেন তারা। 

 

বেসিসের পরিচালক দিদারুল আলম সানি বলেন, ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকলে আমাদের প্রচুর ক্ষতি হবে। আমরা সার্ভিস দিতে না পারলে বিদেশি গ্রাহকেরা আমাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে পারেন। এটা তো আর সাবমেরিন ক্যাবলের সমস্যা না যে পুরো পৃথিবীজুড়ে হচ্ছে। বিদেশি ব্যবসায়ীদের কাছে এই বার্তাই যাবে যে, এই দেশে সরকার আর ব্যবসায়ীদের মধ্যে সম্পর্কের টানাপড়েনে এমনটা হচ্ছে।

 

তবে  আজকের (শনিবার, ১৭ অক্টোবর) মধ্যে সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা করছেন এই প্রযুক্তি উদ্যোক্তা। আলোচনায় সমাধান না এলে প্রধানমন্ত্রী বরাবর সংগঠনের পক্ষ থেকে চিঠি দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

 

সংশ্লিষ্ট মহলগুলোর সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমি শেষ পর্যন্ত সবার সঙ্গে কথা বলে যাবো। কোয়াব, আইএসপিএবিকে বলবো সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করে আর কী কর্মসূচি নেওয়া যায়।

 

দক্ষিণ সিটির এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে গত ১২ অক্টোবর জাতীয় প্রেসক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলনও করেছেন ‘আইএসপিএবি’ ও ‘কোয়াব’ নেতারা। সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেন, কোনো প্রকার নোটিশ ছাড়াই ঝুলন্ত কেবল কাটায় তাঁদের আনুমানিক ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। যতদিন মাটির নিচ দিয়ে কেবল নেওয়ার স্থায়ী ব্যবস্থা না করা হয়েছে ততদিন ঝুলন্ত কেবল অপসারণ করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়